Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

টপিক বাছাই করুন

+ আরও

rupanzil  ভাবনায় ডুবি ভাসি .....

পন্ডিত

কোনো ভাবেই রাগ রাগী করবেন না , বরং শুরুতেই ওকে বুঝান যে আপনি জানেন যে এগুলো ও ইচ্ছে করে রাখেনি ,আপনি নিজেই যখন ওকে সেফ করতে চাইবেন তখন ও লজ্জিত হবে এবং সত্যি টা আপনার সাথে শেআর করবে ..আসলে এই বিষয় গুলো জ জীবনের একটা পার্ট তা ওকে আগে থেকেই ধারণা দিতে হবে.. যেন অতি কৌতুহল বশত ও কোনো বাজে অভ্ভাসে জড়িয়ে না যায় . এবং এসব বই বা cd র খারাপ প্রভাব সম্পর্কে ধারণা দিতে হবে . ধর্মের দৃষ্টিকোণ থেকেও এর খারাপ দিক আপনার সন্তানের সামনে তুলে ধরুন .

রিনি  শূন্য থেকে শুরু....

গুরু

আমি একজন মা.. মা হিসেবে যদি এই প্রশ্নের উত্তর দেই, আমি বলব আমরা খুব অস্থির আর বাজে একটা সময়ে যাচ্ছি..আমাদের কোন কাজটা যে আসলে ভালো ফল আনবে বাচ্চাদের জন্য আমরা সত্যি জানিনা..তারপরেও এমন যদি সত্যি মোকাবেলা করার দরকার পরে তবে আমার ভাবনা দু রকম..১. পর্ণ মুভি দেখা মানেই খারাপ কিছু না, একটা সীমার মধ্যে অজানা কে জানার আগ্রহ থেকে দেখতেই পারে, তবে সেটা যেন আসক্তি না হয় অভিভাবক হিসেবে সেটা খেয়াল রাখা জরুরি..২. যদি সত্যি আমার সন্তানের কাছে পর্ণ মুভি দেখি, আমি তাকে অফার করব একসাথে দেখার.. তাকে যদি সুশিক্ষা দিয়ে থাকি সে মাথা নিচু করবেই এই অফার এ...তাকে বোঝাতে হবে সেই সুযোগে যা তুমি তোমার পরিবারের সবার সাথে দেখতে পারনা সেটা ক্ষতিকর...মা-বাবা-সন্তানদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক হয়ত সব ধরনের আসক্তি থেকে রক্ষা করতে পারবে..ধন্যবাদ...

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট  মেধাশূন্য এক অলস স্বপ্ন বাজ মানুষ । সত্যিকার হাসির মাঝে জীবনের স্পন্দন খুঁজে পাওয়ার চেস্টা করি ।

পন্ডিত

প্রথমেই বলে রাখা ভালো প্রত্যেক ধর্মেই আছে পর্ণ দেখা হারাম। আর আমাদের ইসলাম ধর্মে তো সম্পূর্ণ নিষেধ বলা হয়েছে চোখ , হাত আর লজ্জাস্থান এর হিফাযত করার কথা । সুতারং প্রত্যেক বাবা, মা এর উচিত সন্তান কে ছোটবেলা থেকেই ধর্ম অনুসারে সুশিক্ষা দেয়া । আর যদি দেখেন সে পর্ণ মুভিতে আকৃষ্ট তাহলে তার সাথে খারাপ ব্যবহার না করে সরাসরি বুঝিয়ে বলা। ধর্মের বিধি-নিষেধ সম্পর্কে জানানো।তাকে সবসময় চোখে চোখে রাখা , খারাপ বন্ধুদের সাথে মিশতে না দেয়া । যদি বাসায় ইন্টারনেট এর ক্যবল থাকে তাহলে পর্ণ সাইটগুলো ব্লক করে দেয়া উচিত। সবশেষে একটা কথা সন্তানদের সাথে বন্ধুত্ত ভাবাপন্ন সম্পর্ক রাখা ।

রুশদী  আসেন, নিজের ঢোল নিজেই পিটাই :)

গুরু

আমার বালিশের নিচে আব্বা একদিন পেয়েছিলো কিছু. ভয় এ ছিলাম যে কি করবে এবার. ঐদিন বিকালে দেখি এলাকার মসজিদ এর হুজুর আমাকে ডেকে এসবের তালিম দিচ্ছে!!!.......বুঝলাম কি ঘটনা আসলে, নট ব্যাড :/

Ahetesham Uddin  কমপিউটার জগতের মাসুম ভাই

গুরু

মোটেও খারাপ ব্যবহার করা উচিত হবে না। সন্তানকে বাবা-মার বেশি সময় দিতে হবে। একসাথে খেলা করা, ভাল মুভি দেখা, বাইরে বেড়ানো, খাওয়া, বাসায় একসাথে গল্প করা, টিভি দেখা, লেখাপড়ার খোজ-খবর নেওয়া ইত্যাদির মাধ্যমে সন্তানকে কাছে টানতে হবে। সন্তানের বন্ধুবান্ধবদের খোঁজ খবর রাখা, তাদের বাবা-মার সাথে দেখা করা । সোজা কথা চেক এন্ড ব্যালেন্সের মাধ্যমে তাদেরকে নিয়ন্ত্রণে রেখে তাদের অভ্যাস পরিবর্তন করতে হবে।

১ টি উত্তর লুকিয়ে রাখা হয়েছে

রানা মাসুদ

পন্ডিত

আমি বিষ্মিত !!! আল্লাহর সৃষ্টিতে....

আরও কিছু সিডি এনে বলব, নে আর ও ভালো করে দেখ, এগুলো তোর জন্ম দিনের প্রেজেন্ট

অথবা,