Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

( ৪ টি উত্তর আছে )

( ৩,৯৬০ বার দেখা হয়েছে)

কাব্যকনা প্রীতি  মুখে বাংলাভাষা, অন্তরে বাংলাদেশ আর ভালবাসি বাংলাদেশের মাটি, মানুষ ও প্রিয়জনদের .......

পন্ডিত

একটা নির্দিষ্ট বয়স পর্যন্ত মানবদেহের বৃদ্ধি ঘটে, বাড়ে আমাদের উচ্চতা। কতখানি লম্বা হবে দেহ, সেটা অনেকটাই জেনেটিক। তবে এই সাথে অবশ্যই ব্যাপারটা নির্ভর করে খাওয়া দাওয়ার ওপর। পর্যাপ্ত পুষ্টির অভাবে অনেক ক্ষেত্রেই সঠিক বৃদ্ধি ঘটে না দেহের। আবার এমন কিছু খাবার আছে, যারা দেহের বৃদ্ধির এই প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে। আসুন, আজ জেনে নেই এমন কিছু অসাধারণ খাবারের নাম, খাদ্য তালিকায় যারা স্থান পেলে বাড়বে দেহের উচ্চতা। ১. আপেল : আপেলে থাকা ফাইবার এবং পানি বাচ্চাদের লম্বা হতে সাহায্য করে থাকে। তাই প্রতিদিন খাবারের আধা ঘন্টা আগে একটি করে আপেল খেতে দিন এতে করে 2ফাইবারটি লম্বা হতে সাহায্য করে থাকবে। ২. আভাকাডো : দুপুরে খাবার সময়ে অর্ধেকটা আভাকাডো দেহে বিভিন্ন পুষ্টি সরবরাহ করে থাকে। এত করে লম্বা হতে সহায়তা করে থাকে। ৩. স্যুপ : স্যুপ স্বাস্থ্য উপযোগী একটি খাবার। এতে ক্যালরি রয়েছে যা ক্ষুধা বাড়িয়ে দেয়। ফলে অতিরিক্ত খাবার গ্রহণের ফলে কোষ বৃদ্ধি করে লম্বা করে তোলে। ৪. মটরশুটি, ছোলা, মসূর : এই ধরনের খাবারগুলোতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, ফাইবার, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, ভিটামিন বি এবং আয়রন রয়েছে যেগুলো শরীরের কোষ বুদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে। ফলে লম্বা হতেও সাহায্য করে থাকে। ৫. ডার্ক চকোলেট : বাচ্চাদের এমনিতে চকোলেট খেতে দেয়া হয় না। কিন্তু এই ডার্ক চকোলেটও বাচ্চাদের লম্বা করতে সহায়তা করে। এতে থাকা ক্যালরি কোষ বদ্ধি করে ফলে বাচ্চারা লম্বা হয়ে ওঠে। ৬. ডিম : ডিম একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। এতে প্রোটিন এবং ভিটামিন প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। এর ফলে শরীরের বৃদ্ধি হয়ে থাকে এবং লম্বা হয়।1 ৭. বাদাম : বাদাম বা কাজুবাদামও স্বাস্থ্য উপযোগী একটি খাবার। এটিতে থাকা বিভিন্ন প্রোটিন, ভিটামিন দেহের বিভিন্ন পুষ্টি যোগায়, এবং লম্বা হতেও সহায়তা করে থাকে।

Ahetesham Uddin  কমপিউটার জগতের মাসুম ভাই

গুরু

ব্যায়াম করা, দুই হাত টান টান করে ঝুলা, নিয়মিত খেলাধুলা করা। আমি বন্ধু ৪’৫’’ থেকে বর্তমানে সে ৪’৯’’ হয়েছে।

ইমাম  শ্বপ্ন দেখার আগে একবার ভাবো কারন তোমার শ্বপ্ন এক্ষনি পুরন হতে পারে।

জ্ঞানী

শিশু ও কিশোর বয়শে খাবারে প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। উতফুল্ল থাকতে হবে। দৌর ঝাপ খেলতে হবে। সুসম খাবার খেতে হবে। নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে।

Minhazur Rahman  Experienced in Self-help

পন্ডিত

আপনি স্ট্রেচিং ট্রাই করে দেখুন, আমি স্ট্রেচিং করে উপকার পেয়েছিলাম.


অথবা,